ক্যাটাগরি: উপকূলীয় মাছ | মাছ | মাৎস্য সম্পদ | সামুদ্রিক মাছ

বাংলাদেশের মাছ: বোম্বাই ডাক, Bombay-duck, Harpadon nehereus

বোম্বাই ডাক, Bombay-duck, Harpadon nehereus

বোম্বাই ডাক, Bombay-duck, Harpadon nehereus

শ্রেণীতাত্ত্বিক অবস্থান (Systematic position):
পর্ব : Chordata
শ্রেণী: Actinopterygii (Ray-finned fishes)
বর্গ: Aulopiformes (Grinners)
পরিবার: Synodontidae (Lizardfishes)
গণ: Harpadon
প্রজাতি: H. nehereus

সাধারণ নাম (Common name):
English: Bombay-duck, Bankagduel
বাংলা: বাংলাদেশে এটি বোম্বাই ডাক, লইট্টা এবং নিহারী নামে পরিচিত। ভারতে এদেরকে বিউমালোহ (Bumaloh), লুটিয়া (Lutia) এবং নিহিরী (Nehere) নামে ডাকা হয় (Talwar and Jhingran, 1991)।

সমনাম (Synonyms):
Osmerus nehereus Hamilton, 1822

বিস্তৃতি (Distribution):
প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল: সোমালিয়া থেকে পাপুয়া নিউ গিনি (Papua New Guinea) এবং জাপান থেকে ইন্দোনেশিয়া পর্যন্ত বিস্তৃত।

সংরক্ষণ অবস্থা (Conservation status):
IUCN Bangladesh (2000) এর মতে বাংলাদেশে এটি হুমকি-গ্রস্ত প্রজাতির নয়।

বাহ্যিক দৈহিক গঠন (Morphology):
দেহ লম্বা এবং পার্শ্বীয়-ভাবে চাপা। চোখ খুবই ছোট আকৃতির এবং চর্বিময় (edipose) পর্দা দ্বারা আবৃত। মুখের হা অনেক প্রশস্ত। ম্যাক্সিলা (Maxilla) অনুপস্থিত। নিম্ন চোয়াল চওড়া ও স্পষ্ট। ফুলকা ছিদ্র প্রশস্ত। আঁইশ অস্থায়ী অর্থাৎ একটা নির্দিষ্ট সময় পরে ঝড়ে পড়ে। পার্শ্বরেখায় ৪০ টির মত আঁইশ থাকে এবং আঁইশগুলো তীক্ষ্ণ, সরু ও আয়তাকার ঝিল্লী দ্বারা আবৃত। (Rahman, 1989 and 2005)। তিনটি সুনির্দিষ্ট তীক্ষ্ণ খণ্ডাংশ (lobes) নিয়ে লেজ গঠিত।
দেহের রং বাদামী থেকে ধূসর প্রকৃতির। পিঠের দিকে অনেকগুলি কালো ফোটা দেখতে পাওয়া যায়।

পাখনা-সূত্র (Fin formula):
D.12-13; P1. 11-12; P2. 9; A. 2(12-13) (Rahman, 1989 and 2005)
D 12-14; A 13-15; P i 10-11; V i 8 (Talwar and Jhingran, 1991)

সর্বোচ্চ দৈর্ঘ্য (Maximum length):
রেকর্ডকৃত দৈর্ঘ্য ২৪.৫ সেমি তবে এটি সাধারণত ৪০ সেমি পর্যন্ত হতে পারে (Rahman, 1989 and 2005)। চল্লিশ সেমি (Talwar and Jhingran, 1991)।

আবাসস্থল (Habitat):
বঙ্গোপসাগর, বাংলাদেশের মোহনাঞ্চল এবং যেসব নদীতে জোয়ার ভাটা চলে সেসব নদীতে এদের পাওয়া যায় (Rahman, 1989 and 2005)। উপকূলীয় এলাকা এবং মোহনাতে বসবাস করে (Talwar and Jhingran, 1991)। সুন্দরবনের লবণাক্ত এলাকায় এদের দেখা যায় (Gopal and Chauhan, 2006)। বাংলাদেশ অংশের সুন্দরবনের সামান্য লবণাক্ত এবং লবণাক্ত এলাকায় এদের বসবাস করার তথ্য জানা গেছে (Hoq et al., 2006)।
ভারতের পশ্চিম উপকূলে এর প্রাচুর্যতা রয়েছে (Rupsankar, 2010)। ১৯৯৮ থেকে ২০০১ সনের দিকে চীনের চ্যাংজিয়ান (Changjiang (Yangtze)) নদীতে প্রচুর পরিমাণে ধরা পড়ার রেকর্ড রয়েছে (Haicheng and Weiwei, 2009)।

বোম্বাই ডাক এর শুঁটকি

বোম্বাই ডাক এর শুঁটকি

মৎস্য গুরুত্ব (Fisheries importance):
লইট্টা একটি বাণিজ্যিক গুরুত্ব সম্পন্ন মাছ। বাংলাদেশে খাদ্য হিসেবে সতেজ এবং শুঁটকী উভয় ভাবেই ব্যবহৃত হয়। বাংলাদেশের চট্টগ্রামে (এখানে এই মাছের প্রাচুর্যতা সবচেয়ে বেশী) এটি একটি জনপ্রিয় মাছ (Rahman, 1989 and 2005)।
ঐতিহ্যগতভাবে লট্টার টাটকা মাছের চাহিদা কম এবং বেশিরভাগ মাছই রৌদ্রে রশিতে ঝুলিয়ে শুকানো হয় (Rupsankar 2010)।
লইট্টা মাছ এশিয়ার দক্ষিণ এবং দক্ষিণ-পূর্ব অঞ্চলে অর্থনৈতিক গুরুত্ব রয়েছে। ভারতে হুগলী মোহনায় এটি গুরুত্বপূর্ণ মাছ হিসেবে অবদান রেখে চলেছে (Talwar and Jhingran, 1991)।
বাংলাদেশে এই মাছের ব্যবহার কম এবং এটির জেলি তৈরির জন্য গবেষণা করা হয়েছে (Kamal et al. 2001)।
এই মাছের আর্দ্রতা বেশী (৮৯%), উচ্চমাত্রায় উৎসেচক ও ব্যাকটেরিয়াজনিত কার্যক্রম চলে (Rupsankar 2010)।
মাছটিতে চর্বির পরিমাণ কম (Shankar et al., 2010)।

রোগ (Disease):
চীনের জলাশয়ে ডাইজেনিন পরজীবী (Digenean parasites) যেমন Bucephalus harpodontis দ্বারা আক্রান্ত হয় বলে জানা গেছে (Liu et al. 2010)।

 

তথ্যসূত্র (References):

  • Gopal B and Chauhan M. 2006. Biodiversity and its Conservation in the Sundarban Mangrove Ecosystem. Aquatic Sciences 68:338–354.
  • Haicheng Y and Weiwei X. 2009. The environment effect on fish assemblage structure in waters adjacent to the Changjiang (Yangtze) River estuary (1998–2001). Chinese Journal of Oceanology and Limnology 27(3):443-456.
  • Hamilton F. 1822 An account of the fishes found in the river Ganges and its branches. Edinburgh & London. An account of the fishes found in the river Ganges and its branches.: i-vii + 1-405, Pls. 1-39.
  • Hoq ME, Wahab MA and Islam MN. 2006. Hydrographic status of Sundarbans mangrove, Bangladesh with special reference to post-larvae and juveniles fish and shrimp abundance. Wetlands Ecology and Management 14:79–93.
  • IUCN Bangladesh. 2000. Red book of threatened fishes of Bangladesh, IUCN- The world conservation union. xii+116 pp.
  • Kamal M, Biswas BC, Yasmin L, Azimuddin KM and Islam MN. 2001. Influence of Temperature on the Gel-forming ability of Some Under-utilized Marine Fish Species in Bangladesh, Pakistan Journal of Biological Science 4(12):1525-1542.
  • Liu S, Peng W, Gao P, Fu M, Wu H, Lu M, Gao J and Xiao J. 2010. Digenean parasites of Chinese marine fishes: a list of species, hosts and geographical distribution. Syst. Parasitol. 75:1–52.
  • Rahman AKA. 1989. Freshwater Fishes of Bangladesh, 1st edition, Zoological Society of Bangladesh, Department of Zoology, University of Dhaka, Dhaka-1000, pp. 71-72.
  • Rahman AKA. 2005. Freshwater Fishes of Bangladesh, 2nd edition, Zoological Society of Bangladesh, Department of Zoology, University of Dhaka, Dhaka-1000, pp. 86-87.
  • Rupsankar C. 2010. Improvement of cooking quality and gel formation capacity of Bombay duck (Harpodon nehereus) fish meat. J. Food Sci. Technol. 47(5): 534-540.
  • Shankar TJ, Sokhansanj S, Bandyopadhyay S and Bawa AS. 2010. Storage Properties of Low Fat Fish and Rice Flour Coextrudates. Food Bioprocess Technol. 3:481–490.
  • Talwar PK and Jhingran AG. 1991. Inland Fishes of India and Adjacent Countries, Vol. 2, Oxford & IBH Publishing Co. Pvt. Ltd. New Delhi-Calcutta, pp. 724-725.

 

পুনশ্চ:

English Feature: Bombay-duck, Harpadon nehereus (Hamilton, 1822)

Visitors' Opinion

লেখক

Student, B. Sc. (Hons.) in Fisheries & Marine Bioscience, Jessore University of Science & Technology, Jessore 7404 , Bangladesh. Email: mamunfmb14@gmail.com, Phone: +88 01737396359, 01917558548. More...

Leave a Reply