ক্যাটাগরি: উপকূলীয় মাছ | মাছ | মাৎস্য সম্পদ | সামুদ্রিক মাছ | স্বাদুপানির মাছ

বাংলাদেশের মাছ: বৈরাগী বা আমাদি, Goldspotted grenadier anchovy, Coilia dussumieri

শ্রেণীতাত্ত্বিক অবস্থান (Systematic position):
পর্ব: Chordata
শ্রেণী: Actinopterygii (Ray-finned fishes)
বর্গ: Clupeiformes (Herrings)
উপবর্গ: Clupeoidei
পরিবার: Engraulidae (Anchovies)
উপ-পরিবার: Coiliinae
গণ: Coilia
প্রজাতি: Coilia dussumieri

সমনাম (Synonyms):
Coilia quadrifilis Günther, 1868
Demicoilia margaritifera Jordan & Seale, 1926
Leptonurus chrysostigma Bleeker, 1849

সাধারণ নাম (Common name):
বাংলা: বৈরাগী, অলুয়া, মেঘা অলুয়া ও আমাদি।
English: Goldspotted grenadier anchovy and Painted tail anchovy
অন্যান্য: ভারতে এটি উয়ারিয়ালি (উড়িষ্যা) এবং মান্দেলি (মহারাষ্ট্র) নামে পরিচিত (Talwar and Jhingran, 1991)।

বিস্তৃতি (Distribution):
ভারত মহাসাগর। বাংলাদেশ (Rahman, 1989 and 2005), ভারত, শ্রীলঙ্কা, মায়ানমার এবং পূর্ব ও দক্ষিণ এশিয়া (Talwar and Jhingran, 1991) যথা থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া।

সংরক্ষণ অবস্থা (Conservation status):
আইইউসিএন বাংলাদেশ (IUCN Bangladesh, 2000) এর মতে এটি হুমকিগ্রস্ত (threatened) মাছ নয় ।

দৈহিক গঠন(Morphology):
দেহ লম্বা, অত্যন্ত চাপা এবং পশ্চাৎ দিক ক্রমশ সরু হয়ে লেজে যেয়ে শেষ হয়েছে। প্রায় গোলাকার উদরে ১২ থেকে ১৫ টি স্কিউট (scute) বর্তমান যার মধ্যে ৫-৬ টি শ্রোণীপাখনার ভিত্তির সম্মুখভাগে এবং ৭-৯ টি পশ্চাতে অবস্থিত (Talwar and Jhingran, 1991)। বক্ষপাখনার প্রথম ছয়টি পাখনা-রশ্মি পরিবর্তিত হয়ে লম্বা সূত্রাকার গঠনে (filament) পরিণত হয়। দেহ উচ্চতা (body height) যেখানে সবচেয়ে বেশি সেখানে পৃষ্ঠপাখনার ভিত্তির অগ্র-প্রান্ত অবস্থিত।

দেহের পৃষ্ঠদেশ ও প্রান্তভাগ হালকা বাদামী বর্ণের। রূপালী উদরে ২-৩ সারি মুক্তা বা সোনালী বর্ণের রঙের দাগ রয়েছে (Rahman, 1989 and 2005)। আঁইশের আকৃতিতে মধ্যম। মধ্যস্থিত পার্শ্বরেখায় ৬৫ টি আঁইশ উপস্থিত (Rahman, 1989 and 2005)।

পাখনা সূত্র (Fin formula):
D. 1/13-14; P1. 6/10-11; P2. 7; A. 95-105 (Rahman, 1989 and 2005)
D iii 10-12; A ii 103; P vi + 8-9; V i 6 (Talwar and Jhingran, 1991)

সর্বোচ্চ দৈর্ঘ্য (Maximum length):
এদের মোট ও আদর্শ দৈর্ঘ্য যথাক্রমে ১৫.৫ সেমি (Rahman, 1989 and 2005) এবং ১৬.৫ সেমি (Talwar and Jhingran, 1991)। তবে Huda et al. (2003) অনুসারে এরা দৈর্ঘ্যে ২০ সেমি পর্যন্ত হতে পারে।

আবাস্থল (Habitat):
এরা সামুদ্রিক তবে উপকূলীয় এলাকা ও স্বাদুপানিতেও এদের পাওয়া যায়। Talwar and Jhingran (1991) অনুসারে এরা উপকূলীয় এলাকা এবং মোহনাতে বসবাস করে। বাংলাদেশের মোহনাঞ্চল ও বঙ্গোপসাগরে এদের দেখা যায় (Rahman, 1989 and 2005)। সুন্দরবনেও এদের উপস্থিতির তথ্য রয়েছে (Huda et al., 2003)।

প্রজনন (Breeding):
সম্ভবত প্রজননের জন্য এরা মোহনাঞ্চলে এসে থাকে (Talwar and Jhingran, 1991)।

মৎস্য গুরুত্ব (Economic importance):
বাংলাদেশে এটি খাবারের মাছ হিসেবে ব্যবহৃত হয়। ভারতের কোন কোন অঞ্চলেও এটি খাবারের মাছ হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে থাকে (Talwar and Jhingran, 1991)।

 

তথ্য সূত্র (References):

  • Bleeker P (1849) Bijdrage tot de kennis der ichthyologische fauna van het eiland Madura, met beschrijving van eenige neiuwe soorten. Verhandelingen van het Bataviaasch Genootschap van Kunsten en Wetenschappen. 22(8):1-16.
  • Cuvier G.  and Valenciennes A (1848) Histoire naturelle des poissons. Tome vingt et unième. Suite du livre vingt et unième et des Clupéoïdes. Livre vingt-deuxième. De la famille des Salmonoïdes. Histoire naturelle des poissons. 21: i-xiv + 1 p. + 1-536.
  • Günther A (1868) Catalogue of the fishes in the British Museum. Catalogue of the Physostomi, containing the families Heteropygii, Cyprinidae, Gonorhynchidae, Hyodontidae, Osteoglossidae, Clupeidae,… [thru]… Halosauridae, in the collection of the British Museum. Catalogue of the fishes in the British Museum. 7:i-xx + 1-512.
  • Huda MS, Haque ME, Babul AS and Shil NC (ed.) (2003) Field guide to finfishes of Sundarban, Aquatic resources division, Sundarban, Boyra, Khulna, Bangladesh, p. 60.
  • IUCN Bangladesh (2000) Red book of threatened fishes of Bangladesh, IUCN- The world conservation union. xii+116 pp.
  • Jordan DS and Seale A (1926) Review of the Engraulidae, with descriptions of new and rare species. Bulletin of the Museum of Comparative Zoology 67(11): 355-418.
  • Rahman AKA (1989) Freshwater Fishes of Bangladesh, 1st edition, Zoological Society of Bangladesh, Department of Zoology, University of Dhaka, Dhaka-1000, pp. 241-242.
  • Rahman AKA (2005) Freshwater Fishes of Bangladesh, 2nd edition, Zoological Society of Bangladesh, Department of Zoology, University of Dhaka, Dhaka-1000, pp. 265-266.
  • Talwar PK and Jhingran AG (1991) Inland Fishes of India and Adjacent Countries, Vol. 1, Oxford & IBH Publishing Co. Pvt. Ltd. New Delhi-Calcutta, pp. 128-129.

 

পুনশ্চ:

  • English Feature: Goldspotted grenadier anchovy, Coilia dussumieri Valenciennes, 1848
  • মাছটির ছবি আমাদের সংগ্রহে নেই। আপনার তোলা ছবি থাকলে আমাদের সাথে শেয়ার করতে পারেন। মাছটির ছবি গুগলে খোঁজ করতে এখানে ক্লিক করুন।

Visitors' Opinion

লেখক

Student, B. Sc. (Hons.) in Fisheries & Marine Bioscience, Jessore University of Science & Technology, Jessore 7404 , Bangladesh. Email: mamunfmb14@gmail.com, Phone: +88 01737396359, 01917558548. More...

Leave a Reply