ক্যাটাগরি: উপকূলীয় মাছ | মাছ | মাৎস্য সম্পদ | সামুদ্রিক মাছ

বাংলাদেশের মাছ: চৌখ্যা, Indian Pellona, Pellona ditchela

শ্রেণীতাত্ত্বিকঅবস্থান(Systematic position)
পর্ব: Chordata
শ্রেণী: Actinopterygii (Ray-finned fishes)
বর্গ: Clupeiformes (Herrings)
উপবর্গ: Clupeoidei
পরিবার: Pristigasteridae (Longfin herrings)
উপপরিবার: Pelloninae
গণ: Pellona
প্রজাতি: P. ditchela Valenciennes, 1847

সমনাম (Synonyms)
Ilisha hoeveni (Bleeker, 1852)
Ilisha hoevenii (Bleeker, 1852)
Pellona hoeveni Bleeker, 1852
Pellona hoevenii Bleeker, 1852
Pellona natalensis Gilchrist and Thompson, 1908

সাধারণনাম (Common name)
বাংলা: চৌখ্যা, চৌক্কা, চোখা
English: Indian Pellona, Big-eyed Herring, Indian Pellona herring

ভৌগোলিক বিস্তৃতি (Geographical Distribution)
উষ্ণজলের এই মাছের বিস্তৃতি পশ্চিম ইন্দো-প্রশান্ত (Indo-Pacific) মহাসাগরে (Talwar and Jhingran 1991)। বঙ্গোপসাগর,ভারত মহাসাগরে পূর্বাঞ্চল, অস্ট্রেলীয়ার উত্তরাঞ্চল, আফ্রিকার পূর্বাঞ্চল ও এবং উত্তর তাইওয়ান (Shafi and Quddus,2003)। পশ্চিম ইন্দো-প্রশান্ত মহাসাগরের ওমান উপসাগর থেকে ডারবান পর্যন্ত, ম্যাডাগ্যাস্কার (Madagascar) দক্ষিণ আফ্রিকা, থাইল্যান্ড, বাংলাদেশ, ভারত, ইন্দোনিশিয়া, ফিলিপাইন, ও দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া (Siddique et al.,2007)
Fishbase (2014) অনুসারে এদের বিস্তৃতি: 25°N – 30°S, 43°E – 155°E

Geographical distribution of Pellona ditchela (Aquamaps, 2013)

Geographical distribution of Pellona ditchela (Aquamaps, 2013)

সংরক্ষণ অবস্থা (Conservation status)
IUCN Bangladesh (2000) আনুসারে এরা হুমকিগ্রস্ত (threatened) প্রজাতির অন্তর্ভুক নয় ।
IUCN (2013) অনুসারে এদের অবস্থা Not Evaluated অর্থৎ এদের সংরক্ষণ অবস্থা এখনও মুল্যায়ন করা হয়নি।

বাহ্যিক দৈহিক গঠন (External Morphology)
দেহ পার্শ্বীয়ভাবে অত্যন্ত চাপা। স্কিউটের (scute) সংখ্যা মোট ২৬-২৮টি যার মধ্যে ১৮-১৯টি শ্রোণীপাখনার অগ্রে এবং অবশিষ্ট ৮-৯ টি শ্রোণীপাখনার পরে অবস্থিত (Talwar and Jhingran, 1991)। উপরের চোয়াল পেছনের দিকে নীচের দিকে অগ্রসর হয়ে (Maxilla) চক্ষু গহব্বরের (orbit) মাঝামাঝি পর্যন্ত বিস্তৃতি লাভ করে। এদের চোখ তুলনামূলকভাবে বড় এবং মুখ তির্যক । এদের চোখের পাতা চর্বিযুক্ত। উপর ও নীচের চোয়ালে এক সারিতে ক্ষুদ্রাকার শক্ত দাঁত বিদ্যমান। এরমধ্যে উপরের চোয়ালে কেবলমাত্র অগ্র থেকে মাঝ বরবর পর্যন্ত দাঁত দেখতে পাওয়া যায়। নীচের চোয়াল বর্ধিত তাই উপরের ঠোটের চেয়ে নীচের ঠোট সামান্য প্রলম্বিত।
দেহের পৃষ্ঠীয় প্রান্তে প্রায় মাঝ বরাবর স্থানে পৃষ্ঠ পাখনা অবস্থিত (Talwar and Jhingran, 1991) যা কিছুটা পুচ্ছ পাখনার চেয়ে তুণ্ডের (snout) নিকটে অবস্থান করে। পৃষ্ঠপাখনা যেখানে শেষ হয় তার বিপরীত প্রান্তে পায়ু পাখনা শুরু হয়। শ্রোণীপাখনা প্রায় চোখের ব্যাসের সমান । পুচ্ছ পাখনা কাঁটার মত দুই ভাগে বিভক্ত (forked) । ফুলাকা খিলানের (gill arch) নিম্নাংশে গঠিত ফুলাকা দণ্ড (gill raker), ফুলকা ফিলামেন্টের (filaments) চেয়ে লম্বা এবং সংখ্যায় ২৩-২৬ টি (Rahman, 1989 and 2005) বা ২২-২৭ টি (Talwar and Jhingran, 1991)।
আঁইশ উপস্থিত। আঁইশগুলো একটি অপরটির সামান্য উপরে উপরিলেপন (overlap) করে অবস্থান করে। পার্শ্বরেখায় আঁইশ এর সংখ্যা ৪০-৪৫টি (Rahman, 1989 and 2005)।
মাথার আদর্শ দৈর্ঘ্যের ৩.৪-৩.৯, মোট দৈর্ঘ্যের ৪.৫-৫.০ গুণ। দেহ উচ্চতা (Height) আদর্শ দৈর্ঘ্যের ২.৫-৩.০, মোট দৈর্ঘ্যের ৩.৩-৪.৮ গুণ। চোখের ব্যাসের চেয়ে তুণ্ড (snout) এবং উভয় চোখের মধ্যবর্তী (interorbital) দূরত্ব কম ।
দেহের পার্শ্বদেশে রুপালি বর্ণের মাঝে বাদামী বর্ণের ডোরা (band) দেখতে পাওয়া যায়। পৃষ্ঠীয় পাশের বর্ণ সামান্য গাঢ় হয়ে থাকে (Naser, 2011)।

পাখনা সুত্র (Fin formula)
D. 17-18; P1. 17; P2. 7; A. 39-42 (Rahman, 1989 and 2005; Siddique et al., 2007)
D. iii-iv 13-16; A. iii 31-36; P. i 15; V. i 6 (Talwar and Jhingran, 1991)

সর্বোচ্চ দৈর্ঘ্য (Maximum length)
৮.১ সেমি (Rahman, 1989 and 2005) এবং ১৬ সেমি (Talwar and Jhingran, 1991; Huda et al., 2003).

আবাস্থল (Habitat)
এরা সমুদ্রিক। তবে উপকূলীয় এলাকার জোয়ার-ভাটার বনাঞ্চালের জলাশয় (mangrove swamps) ও মোহনাঞ্চলে প্রবেশ করে থাকে (Talwar and Jhingran, 1991)। জোয়ার-ভাটা চলে এমন নদীতেও এরা প্রবেশ করে (Rhaman 1989 and 2005)। উপকূলীয় এলাকা এবং সমুদ্রে এই মাছ পাওয়া যায় (Shafi and Quddus, 2003)। এরা জোয়ার-ভাটা বিশিষ্ট নদীতে, ম্যানগ্রোভ জলাশয় (mangrove swamps) এবং বঙ্গোপসারে যেয়ে মিলিত হয়েছে এমন মোহনাতে বিচরণ করে (Siddique et al., 2007)। সুন্দরবনে পর্যাপ্ত পরিমাণে পাওয়া যায় । (Huda et al., 2003).

খাদ্য এবং খাদ্যাভাস (Food and feeding habit)
এরা উদ্ভিদকণাভোজী (Planktivorous) (Shafi and Quddus, 2003)। এরা উদ্ভিদকণা (plankton) খেয়ে বেঁচে থাকে, বিশেষ করে ডায়াটম (diatom) (Siddique et al., 2007)।

বাস্তুতাত্ত্বিক ভূমিকা (Ecological role)
জলজ উদ্ভিদ এবং উদ্ভিদের মৃত-পচা অংশ (detritus) খাদ্য হিসেবে গ্রহণ করে পানির দূষণ নিয়ন্ত্রণে ভূমিকা রাখে (Siddique et al., 2007)।

মৎস্য গুরুত্ব (Fishery information)
এদের প্রধানত থলি জাল (purse seine net), সমুদ্রিক জাল (beach seine net) এবং ব্যাগ জালের (set bag nets) সাহায্য ধরা হয় (Siddique et al., 2007)G বাংলাদেশের মোহনাঞ্চল ও উপকূলে উল্লেখিত জালের সাহায্য দক্ষতার সাথে এদের ধরা হয় (Talwar and Jhingran, 1991); টুনা (Tuna) মাছের জন্য খুব ভাল টোপ (bait) হিসেবে এর ব্যবহার রয়েছে (Rajan, 2003).
তাজা ও শুঁটকি উভয় অবস্থায় এই মাছ বাজারে পাওয়া যায়।
সারা পৃথিবীতে এই মাছের উৎপাদন ২০১২ সালে ছিল ১৪৮০৭ টন (FAO, 2014)।

 

তথ্য সুত্র (References)

  • Aquamaps (2013) Computer Generated Native Distribution Map for Pellona ditchela (Indian pellona) (modelled future range map based on IPCC A2 emissions scenario). version of Aug. 2013. Web. Accessed 21 May. 2014.
  • Bleeker P (1852) Bijdrage tot de kennis der ichthyologische fauna van Singapore. NatuurkundigTijdschriftvoorNederlandschIndië 3:51-86.
  • Gilchrist JDF and Thompson WW (1908) Descriptions of fishes from the coast of Natal. Annals of the South African Museum 6 (2): 145-206.
  • FAO 2014. Species Fact Sheets: Pellona ditchela (Valenciennes, 1847). Downloaded on 20 May 2014.
  • Fishbase 2014. Species Summary: Pellona ditchela Valenciennes, 1847. Indian pellona. Downloaded on 20 May 2014.
  • Huda MS, Haque ME, Babul AS and Shil NC (ed.) (2003) Field guide to finfishes of Sundarban, Aquatic resources division, Sundarban, Boyra, Khulna, Bangladesh, p. 66.
  • IUCN 2013. IUCN Red List of Threatened Species. Version 2013.2. Downloaded on 20 May 2014.
    IUCN Bangladesh (2000) Red book of threatened fishes of Bangladesh, IUCN- The world conservation union. xii+116 pp.
  • Naser SMA, 2011. Indian Pellona, Pellona ditchelaValenciennes, 1847. Downloaded on 20 May 2014.
  • Rahman AKA (1989) Freshwater Fishes of Bangladesh, 1st edition, Zoological Society of Bangladesh, Department of Zoology, University of Dhaka, Dhaka-1000, pp. 254-255.
  • Rahman AKA (2005) Freshwater Fishes of Bangladesh, 2nd edition, Zoological Society of Bangladesh, Department of Zoology, University of Dhaka, Dhaka-1000, pp. 278-279.
  • Rajan PT (2003) A Field Guide to Marine Food Fishes Of Andaman and Nicobar Islands. Zoological Survey of India, Kolkata. pp. 260.
  • Shafi M and Quddus MMA (2003) BangaposhagorerMatshoShampad (Fisheries of the Bay of Bengal) (in Bengali), Kabir publication. Dhaka, Bangladesh. p. 126.
  • Siddiqui KU, Islam MA, Kabir SMH , Ahmad ATA, Rahman AKA, Haque EU, Ahmed ZU, Begum ZNT, Hasan MA, Khondker M and Rahman MM (eds) (2007) Encyclopedia of Flora and Fauna of Bangladesh, Vol. 23. Freshwater Fishes. Asiatic Society of Bangladesh, Dhaka. P. 17.
  • Talwar PK and Jhingran AG (1991) Inland Fishes of India and Adjacent Countries,Vol. I, Oxford & IBH Publishing Co. Pvt. Ltd. New Delhi-Calcutta, pp. 124-125.

 

পুনশ্চ:

  • মাছটির ছবি আমাদের সংগ্রহে নেই। আপনাদের নিজের তোলা ছবি থাকলে আমাদের সাথে শেয়ার করতে পারেন। ছবি পাঠাতে ইমেইল করুন submit@bdfish.org ঠিকানায়।
  • মাছটির ছবি গুগলে খুঁজতে এখানে ক্লিক করুন।

Visitors' Opinion

লেখক

Student; BSc Fisheries (Honours), Department of Fisheries, University of Rajshahi, Rajshahi-6205, Bangladesh.

Leave a Reply