ক্যাটাগরি: মান নিয়ন্ত্রণ | মাৎস্য প্রযুক্তি

ক্রেতা অধিকার সংরক্ষণের প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশের চিংড়ি পণ্যের মান উন্নয়ন

বাংলাদেশের অর্থনীতিতে চিংড়ি শিল্প একটি উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করে আসছে। ২০০৭-০৮ অর্থবছরে চিংড়ির মোট উৎপাদন ছিল ২২৩,০৯৫ মে. টন যার মধ্যে ৪৯৯০৭ মে. টন চিংড়ি রপ্তানী করে ২৮৬৩.৯২ কোটি টাকার সমপরিমাণের বৈদেশিক মুদ্রা অর্জিত হয়েছে (মৎস্য অধিদপ্তর, ২০০৯)। বর্তমানে চিংড়ি কারখানায় চিংড়ি ও মত্স্যজাত পন্যের গুণগত মান উন্নয়নের জন্য হ্যাসাপ নীতিমালা বাস্তবায়ন করা হয়েছে । মাঠ পর্যায়েও হ্যাসাপ নীতিমালার বাস্তবায়ন অপরিহার্য। কারণ চুড়ান্ত পর্যায়ে চিংড়ির মান রক্ষার প্রথম পদক্ষেপই হল খামার থেকেই এর পরিচর্যা ও পরিবহনের উপর বিশেষ গুরুত্বারোপ করা। তাই গুণগতমান নিয়ন্ত্রণের জন্য আহরণের …বিস্তারিত