ক্যাটাগরি: মাছ | মাৎস্য সম্পদ | স্বাদুপানির মাছ

কাটারী বা নারিকেলি চেলা

কাটারী বানারিকেলি চেলা

ভাল স্বাদ ও পুষ্টিমানের জন্য চেলা মাছ অনেকেরই প্রিয়। লম্বাটে ও চ্যাপ্টা দেহের এ মাছটির রং সাদাটে বা উজ্জ্বল রূপালী এবং দেহের উপরিভাগ সবুজাভাব বা ঈষৎ ধূসর বর্ণের। স্থানীয়ভাবে এ মাছটি কাটারী বা নারিকেলি চেলা নামেও পরিচিত। এর বৈজ্ঞানিক নাম Salmostoma bacaila। পূর্ণাঙ্গ অবস্থায় দৈর্ঘ্যে প্রায় ১৮ সে.মি. এর অধিক হলেও সচরাচর ৬-৮ সে.মি. আকারের মাছই বেশী দেখা যায়।

চেলা মাছ পুকুর, খাল-বিল, নদী-নালা, হাওর-বাওড় সহ সকল ধরনের স্বাদুপানির জলাশয়ে প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যায়। বর্ষার সময় প্লাবিত ধান বা পাট ক্ষেতে এরা ঝাঁক বেধে বিচরণ করে থাকে। এরা পরিষ্কার ও জলজ উদ্ভিদ বিহীন পানিতে থাকতে পছন্দ করে। চলন বিল এলাকার প্রায় সব জায়গাতেই এদের কম-বেশী পাওয়া যায়। পানির উপরের স্তর থেকে খাদ্য গ্রহণকারী এ মাছটি পোকামাকড়ের শূককীট, ছোট আকারের পোকামাকড় ইত্যাদি খাদ্য হিসেবে গ্রহণ করে থাকে।

চেলা মাছে ১৪.৬ শতাংশ আমিষ, ৪.৩ শতাংশ চর্বি ছাড়াও উল্লেখযোগ্য পরিমাণে খনিজ উপাদান যেমন, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম ও লৌহ থাকে। চেলা মাছের চচ্চরি রান্না অনেকের কাছেই অমৃতসম। বাজারে সর্বদাই টাটকা অবস্থায় এ মাছটি পাওয়া যায় এবং ক্রেতাদের কাছে এ মাছটির ভাল চাহিদা রয়েছে।

চেলা মাছ বর্ষার মৌসুমে হালকা স্রোতযুক্ত জলাশয়ে প্রজনন করে থাকে। আবাসস্থল নষ্ট, অতিরিক্ত আহরণ, অবৈধ মাছ ধরার সরঞ্জাম ব্যবহার করে মৎস্য আহরণের ফলে বর্তমানে এ মাছের সংখ্যা দিন দিন কমে আসছে।

তথ্যসূত্রঃ
শফি, মো. এবং কুদ্দুস, মি. মু. আ.; ১৯৮২। বাংলাদেশের মাৎস্য সম্পদ। ১ম সংস্করণ। বাংলা একাডেমী, ঢাকা, বাংলাদেশ। মো. পৃ. xii+৪৪৪।

Afroze, S., N. Sultana and M.A. Hossain; 1996. Small Fish as a Source of Nutrition for Our People. In: Small Indigenous Fish Culture in Bangladesh; Edited by Felts, R.A., K. Ahmed and M. Akhteruzzaman; Integrated Food Assisted Development Project Sub Project 2 (IFADEP SP 2), Dhaka, Bangladesh. pp 57-63.

Rahman, A K M; 2005. Freshwater Fishes of Bangladesh, 2nd Edition. Zoological Society of Bangladesh, Department of Zoology, University of Dhaka, Dhaka, Bangladesh, XVIII+394 pp.

Talwar, P.K. and A.G. Jhingran; 1991. Inland Fishes of India and Adjacent Countries. Oxford and IBH Publishing Co. Pvt. Ltd., New Delhi, India. LIV + 1158 pp.

www.fishbase.org


Visited 478 times, 1 visits today | Have any fisheries relevant question?

Visitors' Opinion

লেখক

প্রভাষক, ফিশারীজ বিভাগ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী, বাংলাদেশ। প্রাক্তন শিক্ষার্থী, ফিশারীজ বিভাগ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী-৬২০৫, বাংলাদেশ। বিস্তারিত
ইমেল: thegalib@gmail.com

Leave a Reply