ক্যাটাগরি: নানাবিধ | মাৎস্য চাষ | স্বাদুপানি

মাছ ও চিংড়ির স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনায় দেশীয় প্রযুক্তিগত জ্ঞান ব্যবহার

মাছের ক্ষত রোগের জন্য ২ কেজি রসুন, ২ কেজি লবণ, ২০ গ্রাম পটাশিয়াম পার ম্যাঙ্গানেট ও ২০ গ্রাম কপার সালফেট ( তুঁতে) ভাল করে ৩০-৫০ লিটার জলে মিশিয়ে পুকুরে প্রয়োগ করা হচ্ছে

কোন নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে অপরিকল্পিত ভাবে রাসায়নিক ঔষধ (chemical drugs) মাছ চাষের পুকুরে প্রয়োগ করা সঠিক নয়। বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকে মাছচাষিরাই বলতে শুরু করেছেন এন্টিবায়োটিকসহ বিবিধ রাসায়নিক ঔষধ ব্যবহারের প্রেক্ষিতে মাছের সঠিক বৃদ্ধি হচ্ছে না, মাছের রঙ সুন্দর হচ্ছে না, ঔষধ …বিস্তারিত

ক্যাটাগরি: উপকূলীয় ও সামূদ্রিক | মাৎস্য চাষ | স্বাদুপানি

শ্রিম্প টয়লেট (shrimp toilet): চিংড়ি চাষের উৎপাদন বাড়াতে অভিনব এক প্রযুক্তি

শ্রিম্প টয়লেট (shrimp toilet) তৈরির প্রাথমিক ধাপ

শ্রিম্প টয়লেট (shrimp toilet) তৈরির প্রাথমিক ধাপে জলাশয়ের তলদেশে ফানেলাকৃতির কাঠামোর মাঝে গর্ত বা কূপ নির্মাণ

শ্রিম্প টয়লেট: বাগদা বা ভেনামি চিংড়ি চাষে চিংড়ির মল, বর্জ্য ও আবর্জনা প্রভৃতি দূরীকরণের লক্ষে ব্যবহৃত একধরণের কাঠামোগত পদ্ধতিই হচ্ছে শ্রিম্প টয়লেট।

প্রয়োজনীয়তা: চিংড়ি চাষে জলাশয়ের তলদেশে চিংড়ির মল, বর্জ্য, নানাবিধ আবর্জনা, অতিরিক্ত খাদ্য ইত্যাদি জমা হয়ে এমোনিয়া, হাইড্রোজেন সালফাইড তৈরি করে যা চাষে অত্যন্ত ক্ষতিকারক প্রভাব সৃষ্টি করে। এর ফলে বিভিন্ন রোগের প্রাদুর্ভাব …বিস্তারিত

ক্যাটাগরি: ইভেন্ট | গণ সচেতনতা | মেলা

শিক্ষার্থীর জন্য মৎস্য স্টিকার: মৎস্য সম্প্রসারণের কার্যকরী ও অভিনব এক পদ্ধতি

সচেতনতামূলক একটি মৎস্য স্টিকার

সচেতনতামূলক একটি মৎস্য স্টিকার

সাধারণভাবে স্টিকার বলতে মুদ্রিত বা চিত্রিত একটুকরো কাগজকে বোঝায় যার একপাশটা আঠালো। আর স্টিকারে মৎস্য বিষয়ক সচেতনতামূলক তথ্যাদি মুদ্রিত থাকলে তা মৎস্য স্টিকার নামে পরিচিতি লাভ করে। পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মৎস্য বিভাগ এই মৎস্য স্টিকারকে নতুন আঙ্গিকে ব্যবহার করে এতে যোগ করেছেন নতুন এক মাত্রা। তারা মৎস্য স্টিকার তৈরি করেছেন শিক্ষার্থীদের বই-খাতায় ব্যবহার উপযোগী করে। শিক্ষার্থীদের জন্য ব্যবহার উপযোগী করে তৈরি করা মৎস্য স্টিকার তারা শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে …বিস্তারিত

ক্যাটাগরি: মাৎস্য চাষ | স্বাদুপানি

আমুর কার্প: মাছচাষের সম্ভাবনাময় এক নতুন জাত

Amur, Cyprinus carpio haematopterus

Amur, Cyprinus carpio haematopterus

বিদেশী মাছ হিসেবে কমন কার্প (আমেরিকান রুই) এর বিভিন্ন জাত (স্কেল কার্প, লেদার কার্প, মিরর কার্প, হাঙ্গেরি কার্প) মৎস্য-প্রেমীদের কাছে আজ সুপরিচিত। সুস্বাদু হওয়ায় এর জনপ্রিয়তাও কম নয়। তবে এর অসুবিধে হল- এরা দ্রুত যৌন পরিপক্বতা পায় (ছয় মাসের কম সময়েই ডিম ধারণ করে), বাজার-যোগ্য আকার অর্জন করার আগেই মজুদ পুকুরে ডিম ছেড়ে ফেলার ফলে এর মজুদ ঘনত্ব বেড়ে যায় ফলে খাদ্য ও বাসস্থানের অভাব হয়। যার ফলশ্রুতিতে সার্বিকভাবে …বিস্তারিত

ক্যাটাগরি: উদ্যোগ | ক্যারিয়ার | সাফল্যগাঁথা

মৎস্য পর্যটন: ভারতবর্ষের অভিনব এক উদ্যোগ

রাজ্যসেরা পুরস্কার প্রাপক নারায়ণ বর্মণের মৎস্য খামারে ভ্রমণ দল

রাজ্যসেরা পুরস্কার প্রাপক নারায়ণ বর্মণের মৎস্য খামারে ভ্রমণ দল

বাঙালী মানেই খাদ্য রসিক। বাঙ্গালী মানেই ভ্রমণ পিয়াসু। বাঙালি বছরে যখনই ছুটির ফাঁদে পা গলিয়ে ফেলে মন তার উড়ু উড়ু করে ওঠে। ব্যাগপত্র গুটিয়ে গুটি গুটি পায়ে বেড়িয়ে পড়ে। কাছে পিঠে যেখানেই যাওয়ার সুযোগ ঘটে বাঙালি পর্যটকদের ভিড়ে সরগরম হয়ে ওঠে সেই স্থান। যাবেন কোথায়! পুরী, গোয়া, নৈনিতাল! না, এবার মৎস্য ভ্রমণ! অবাক হচ্ছেন? হ্যাঁ এমনি এক অভিনব উদ্যোগ …বিস্তারিত

ক্যাটাগরি: ক্যারিয়ার | মৎস্যচাষী | সাফল্যগাঁথা

শ্রীমতী আরতি বর্মন: পশ্চিমবঙ্গের একজন সফল মৎস্য উদ্যোক্তা

নিজের হাতে মাছ আহরণ করছেন শ্রীমতী আরতি বর্মন

নিজের মৎস্য খামারে মাছ আহরণ করছেন শ্রীমতী আরতি বর্মন

মাছ চাষ করে যুগান্তকারী সাফল্য অর্জন করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মৎস্য উদ্যোক্তা শ্রীমতী আরতি বর্মন। অধিক মৎস্য উৎপাদনে সাফল্যের স্বীকৃতি হিসেবে তিনি অর্জন করেছেন “মীন মিত্র” শিরোনামের রাজ্য পুরস্কার। জলাভূমি দিবস – ২০১৬ উপলক্ষে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মৎস্যমন্ত্রী চন্দ্রনাথ সিনহা তাঁর হাতে পুরস্কারটি তুলে দেন। আরতি বর্মনের বাড়ি পশ্চিমবঙ্গের পূর্ব মেদিনীপুর জেলার হলদিয়া ব্লকের দ্বারিবেড়িয়া গ্রামে। দশ বছরের দীর্ঘ পরিশ্রম আর প্রচেষ্টা তাঁকে …বিস্তারিত