ক্যাটাগরি: বিদেশী মাছ | মাছ | মাৎস্য সম্পদ

বাংলাদেশের বিদেশী মাছ: সাকারমাউথ ক্যাটফিশ

Suckermouth catfish, Hypostomus plecostomus

সাকারমাউথ ক্যাটফিশ, Hypostomus plecostomus

সাকারমাউথের আদি নিবাস দক্ষিন আমেরিকা (বিশেষ করে ব্রাজিল) (Akhter, 1995)। বাংলাদেশে এই মাছটি ১৯৮০ সালে থাইল্যাণ্ড হতে আনা হয় (Rahman, 2005)। যদিও সাকারমাউথ আনা হয়েছিলো একুরিয়ামে পালনের উদ্দেশ্যে কিন্তু বর্তমানে বাংলাদেশের বিভিন্ন জলাশয়েও এই মাছটির উপস্থিতি লক্ষ্যনীয়। এই মাছটি অতীব শক্ত (হার্ডি) একটি মাছ এবং এটি প্রায় ১০-১৫ বছর পর্যন্ত বেঁচে থাকে (Galib and Mohsin, 2011; Fishlore, 2009)।

শ্রেণীবিন্যাস Phylum: Chordata Class: Actinopterygii (Ray-finned fishes) Order: …বিস্তারিত

ক্যাটাগরি: বিদেশী মাছ | মাছ | মাৎস্য সম্পদ

ব্লাক কার্প বা স্নেল কার্প

Black Carp

Black Carp

ব্লাক কার্প বা স্নেল কার্পের আদি নিবাস পূর্ব সাইবেরিয়া হতে শুরু করে দক্ষিণ চীনের আমুর নদীর অববাহিকা পর্যন্ত। এর বৈজ্ঞানিক নাম Mylopharyngodon piceus। ১৯৮৩ সালে প্রথমবারের মতো চীন হতে চাষ ও শামুক নিয়ন্ত্রনের উদ্দেশ্যে আমাদের দেশে নিয়ে আসে মৎস্য অধিদপ্তর। কোটচাঁদপুরে কেন্দ্রীয় হ্যাচারী কমপ্লেক্সের পুকুরে লালন-পালনের পর কৃত্রিম প্রজননের মাধ্যমে পোনা উৎপাদন করা সম্ভব হয়। উৎপন্ন পোনা বালুহোর বাওরে ছাড়ার একবছরের মাথায় ২-৩ কেজি হয় এবং একই …বিস্তারিত

ক্যাটাগরি: বিদেশী মাছ | মাছ | মাৎস্য সম্পদ

গ্রাস কার্প বা ঘেসো রুই

গ্রাস কার্প বা ঘেসো রুই

গ্রাস কার্প বা ঘেসো রুই

গ্রাস কার্প বা ঘেসো রুই চীন ও পূর্ব সাইবেরিযার বিশেষত আমুর নদীতন্ত্রের মাছ যার বৈজ্ঞানিক নাম Ctenopharyngodon idella। ১৯৬৬ ও ১৯৭৯ সালে আমাদের দেশে যথাক্রমে হংকং ও জাপান থেকে চাষ এবং জলজ আগাছা নিয়ন্ত্রণের উদ্দেশ্যে আমাদের দেশে আনা হয়। নদী ছাড়াও এরা হ্রদ, খাল, পুকুরের মতো জলাশয়েও বাস করে।

দেহ লম্বা, …বিস্তারিত