ক্যাটাগরি: মাৎস্য চাষ | লাইভলিহুড | স্বাদুপানি

হাওরে ভাসমান খাঁচায় মাছ চাষ ও জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন

হাওরে ভাসমান খাঁচায় মাছ চাষ

হাওরে ভাসমান খাঁচায় মাছ চাষ

উন্মুক্ত বা আবদ্ধ জলাশয়ে নিয়ন্ত্রিত পরিবেশ উপযোগী আকারের খাঁচা স্থাপন করে অধিক ঘনত্বে বাণিজ্যিকভাবে মাছ উৎপাদনের প্রযুক্তিই হল খাঁচায় মাছ চাষ। আমাদের দেশে সাম্প্রতিক সময়ে খাঁচায় মাছচাষ নতুন আঙ্গিকে শুরু হলেও খাঁচায় মাছ চাষের ইতিহাস অনেক পুরানো। খাঁচায় মাছচাষ শুরু হয় চীনের ইয়াংকি নদীতে আনুমানিক ৭৫০ বছর পূর্বে। প্রযুক্তিগত উৎকর্ষতার কারণে আধুনিক কালে খাঁচায় মাছ চাষ ক্রমাগতভাবে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। কেয়ার বাংলাদেশ সর্বপ্রথম …বিস্তারিত

ক্যাটাগরি: মাৎস্য চাষ | মাৎস্য জীববৈচিত্র্য | মাৎস্য ব্যবস্থাপনা | লাইভলিহুড | স্বাদুপানি

মুক্ত জলাশয়ের জীববৈচিত্র্য রক্ষায় বিল নার্সারি: একটি কেস স্টাডি

বিলের পথে ও বিলের পাড়ে স্থাপিত সাইনবোর্ড

বিলের পথে ও বিলের পাড়ে স্থাপিত সাইনবোর্ড

ঘটনা প্রবাহ: গত বছর (২০১১ সালে) বগুড়া জেলার সারিয়াকান্দি উপজেলাধীন রুহিয়ার বিলে একটি বিল নার্সারি স্থাপন করা হয়। এ জন্য মৎস্য অধিদপ্তরের রাজস্ব খাত হতে ৫০ হাজার টাকা বরাদ্দ পাওয়া যায়।

মার্চ মাসে স্থানীয় উপজেলা বিল নার্সারি বাস্তবায়ন কমিটির সভার সিদ্ধান্তের আলোকে নেউরগাছা মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির সদস্যগণের সাথে মতবিনিময় সভা করে সমিতিকে ১২ হাজার …বিস্তারিত

ক্যাটাগরি: লাইভলিহুড

নাজিরারটেক শুঁটকি পল্লীর অর্থনৈতিক অবস্থা ও জীবনমান

নাজিরারটেক শুঁটকি পল্লীর মাছ শুকানোর একটি রেলিং

নাজিরারটেক শুঁটকি পল্লীর মাছ শুকানোর একটি রেলিং

অসংখ্য নদ-নদী ও বঙ্গোপসাগরের বিশালায়তন জলরাশির দ্বারা বিধাতার আশীর্বাদপুষ্ট একটি দেশ বাংলাদেশ। যেখানে ফিশারীজ একটি অপার সম্ভাবনাময় খাত। বর্তমানে বাংলাদেশের রপ্তানী আয়ের ৪.০৪% আসে মাছ ও মৎস্যজাত বিভিন্ন পণ্য হতে। রপ্তানীকৃত মৎস্যজাত পণ্যের মধ্যে শুঁটকি একটি উল্লেখযোগ্য স্থান দখল করে আছে যার দেশে ও দেশের বাইরে রয়েছে যথেষ্ট চাহিদা। জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ সংকলন ২০০৯ অনুযায়ী ২০০৭-০৮ সালে বাংলাদেশ হতে সর্বমোট ২১০ টন শুঁটকি বিদেশে রপ্তানী হয় যার মূল্য ছিল ২.৬৭ কোটি টাকা (সূত্র: জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ সংকলক, …বিস্তারিত

ক্যাটাগরি: মাৎস্য চাষ | লাইভলিহুড

মৎস্য খাতে নারী ও শিশুর অংশগ্রহণঃ প্রেক্ষাপট বাংলাদেশ

বাংলাদেশ মূলত কৃষি নির্ভর। এদেশের ৪৫.১% মানুষ জীবিকার জন্য কৃষির উপর নির্ভরশীল (BBS, 2004)। মৎস্য কৃষিখাতের একটি অন্যতম প্রধান উপখাত যা দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে আসছে। দেশের প্রায় ১.২৫ কোটি মানুষ প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে মৎস্য সেক্টরের বিভিন্ন কার্যক্রমে নিয়োজিত থেকে জীবিকা নির্বাহ করছে (মৎস্য অধিদপ্তর, ২০০৯)। উপকূলীয় অঞ্চলের জনগনের কাছে বাগদা চিংড়ির পোনা আহরণ অর্থ উপার্জনের একটি আকর্ষণীয় মাধ্যম। প্রায় ১৬০,০০০ জনের বেশী জেলে সরাসরি মাছ ধরার কাজে এবং প্রায় ১৮৫,০০০ জন চিংড়ির পোনা আহরণের সাথে জড়িত (মৎস্য অধিদপ্তর, ২০০৭)।

উপকূলীয় এলাকায় চিংড়ি পোনা সংগ্রহকারী শ্রমশক্তির শতকরা ৮০ ভাগই নারী ও শিশু। অন্য এক পরিসংখ্যান থেকে দেখা যায় …বিস্তারিত

ক্যাটাগরি: মাৎস্য চাষ | লাইভলিহুড

নারীর আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে মাছচাষ

বর্তমান সময়ে এমন কোন ক্ষেত্র নেই যেখানে নারীদের পদচারণা নেই। সুযোগ পেলে নারীরা ও যে পুরুষের সমান ভূমিকায় অবতীর্ণ হতে পারে এমনকি কোন কোন ক্ষেত্রে পুরুষের চেয়ে এগিয়ে যেতে পারে তা অনেক ক্ষেত্রেই প্রমাণিত। বাংলাদেশের জনসংখ্যার অর্ধেকের বেশী নারী। মোট জনসংখ্যার ৫২.৫ মিলিয়ন হচ্ছে নারী। এছাড়াও মৎস্য বিষয়ক শ্রমশক্তির শতকরা ৩৬ ভাগ মহিলা। উপকূলীয় এলাকায় চিংড়ি পোনা সংগ্রহকারী শ্রমশক্তির শতকরা ৮০ ভাগই নারী ও শিশু। বিপুল এই জনশক্তিকে কাজে লাগিয়ে আত্মনির্ভরশীলতার পাশাপাশি দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে গুরত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করা সম্ভব। মহিলারাই পারেন মশা উৎপাদনের উৎস এবং রোগ ব্যাধির বাহক ডোবা কে পুষ্টি বা আমিষ এবং বাড়তি আয়ের উৎস হিসেবে পরিণত …বিস্তারিত