ক্যাটাগরি: মাৎস্য চাষ | স্বাদুপানি

বাংলাদেশের মৎস্যখাতে সম্ভাবনাময় একটি প্রজাতির নাম জায়ান্ট বার্ব (Giant barb)

ইন্দোচীন প্রাকৃতিক জলাশয়ের মাছ জায়ান্ট বার্ব (giant barb) সায়ামিস জায়ান্ট কার্প (Siamese giant carp) বা সায়ামিস কার্প (Siamese carp) নামেও পরিচিত যার বৈজ্ঞানিক নাম Catlocarpio siamensis। এটি রুই জাতীয় মাছের মধ্যে পৃথিবীতে সবচেয়ে বড় প্রজাতির মাছ। সুদূর অতিতে ১২০০ কেজি পর্যন্ত জায়ান্ট বার্ব পাওয়া গেলেও বর্তমানে ১৫০ কেজির অধিক পাওয়ার তথ্য নেই। আমাদের দেশের কাতলার দেহগঠনের সাথে এর অনেক মিল রয়েছে তবে কাতলার মাথার আকার থেকে এর মাথার আকার বেশ ছোট। মাছটির শ্রেণীতাত্ত্বিক অবস্থান নিচে দেয়া হল-

Kingdom: Animalia
Phylum: Chordata
Class: Actinopterygii
Order: Cypriniformes
Family: Cyprinidae
Genus: Catlocarpio
Species: C. siamensis

থাইল্যান্ড, ভিয়েতনাম, কম্বোডিয়া ও লাওসের মাছ জায়ান্ট বার্ব এক সময় প্রচুর পরিমাণে পাওয়া গেলেও প্রাকৃতিক জলাশয় থেকে অধিক পরিমাণ আহরণ এবং বাসস্থান নষ্ট হবার জন্য এটি এখন বিলুপ্তির হুমকিতে রয়েছে। আইইউসিএন লাল তালিকায় (IUCN Red List) এটি অতি বিপন্ন (Critically Endangered) প্রজাতি হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। কিন্তু ভিয়েতনামসহ অনেক দেশে কৃত্রিম প্রজননের মাধ্যমে পোনা উৎপাদন কার্যক্রম একদিকে যেমন মাছটির প্রজাতি সংরক্ষণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে অন্যদিকে মাছচাষে সম্ভাবনাময় প্রজাতি হিসেবে এটি পরিচিতি পেতে শুরু করেছে। মাছটির বাজার মূল্য ও ক্রেতার নিকট চাহিদা বেশি থাকায় ভিয়েতনাম ও এর আশেপাশের দেশে মাছটির বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু হয়েছে। এটি ফাইটোপ্লাঙ্কটন, শৈবাল, পচা জৈব বস্তু (detritus), জলে ভেসে আসা স্থলজ উদ্ভিদের ফল ইত্যাদি খেয়ে থাকে। এটি খাঁচায় ও পুকুরে চাষ করা যায়। জায়ান্ট বার্ব এর আবাসস্থলে আবহাওয়া ও জলবায়ুর সাথে আমাদের দেশের আবহাওয়া ও জলবায়ুর বেশ মিল থাকায় এই মাছ চাষের রয়েছে অপার সম্ভাবনা রয়েছে আমাদের দেশে।

ইন্দোচীন জায়ান্ট বার্ব চাষে সফলতা:
এশিয়া মহাদেশের ভিয়েতনাম, কম্বোডিয়া, ফিলিপাইন, থাইল্যান্ড, হংকংসহ অনেক দেশের পুকুরে ও প্রাকৃতিক জলাশয়ে স্থাপিত খাঁচায় এ মাছ সফলভাবে চাষ করা হচ্ছে। ভিয়েতনাম ও কম্বোডিয়া ২০০৫ সালে কৃত্রিম প্রজননের মাধ্যমে মাছটির পোনা উৎপাদনে সফলতা পায় এবং ২০১০ সাল থেকে বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু হয়। বাজার মূল্য ও ক্রেতাদের চাহিদা বেশি থাকায় নিজ দেশের চাহিদা মিটিয়ে ইউরোপের নানা দেশে তারা মাছটি রপ্তানিও করছে। প্রতিবছর এ মাছের চাষের পরিধি বেড়েই চলেছে।

বাংলাদেশে জায়ান্ট বার্ব চাষের সম্ভাবনা:
প্রাকৃতিক, অর্থনৈতিক ও পুষ্টিমানের দিক থেকে আমাদের দেশে এই মাছের চাষের সম্ভাবনা কেমন তা নিচে উল্লেখ করা হল-

প্রাকৃতিক:
আমাদের দেশে উৎপাদিত মোট মাছের ৩৩.৪৯ শতাংশ রুই জাতীয় মাছ। আমাদের দেশে যেসব প্রজাতির রুই জাতীয় মাছ চাষ করা হয় তার প্রায় সবগুলো প্রজাতিই ইন্দোচীনের দেশগুলোতে চাষ করা হয়। তাই বলা যায় আমাদের দেশের প্রাকৃতিক জলাশয়ে খাঁচায় ও পুকুরে জায়ান্ট বার্ব চাষ করার যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে।

অর্থনৈতিক:
কার্প জাতীয় মাছের বাজার মূল্য মাছের আকার, ওজন ও প্রজাতির উপর নির্ভর করে থাকে। একই প্রজাতির অন্তর্ভুক্ত মাছের আকার ও ওজন যত বেশী হয় তার বাজার মূল্যও তত বেশি হয়ে থাকে। সিলভার কার্প, মিরর কার্প, গ্রাস কার্প ইত্যাদি মাছের চেয়ে কাতলার প্রচলিত বাজারমূল্য তুলনামূলক বেশি। অন্যদিকে কাতলা মাছের চেয়ে জায়ান্ট বার্ব এর মাথায় আকার ছোট হওয়ায় এর চাহিদা ও বাজার মূল্য দুটোরই বেশি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ফলে চাষিরা এ মাছ চাষ করে অধিক লাভবান হতে পারবে বলে প্রত্যাশা করা যায়।

আমিষের চাহিদা পূরণ:
আমাদের দেশে প্রাণীজ আমিষের প্রধান উৎস মাছ। আর মাছ থেকে আসা আমিষের সিংহভাগই পূরণ হয় রুই জাতীয় মাছের বিভিন্ন প্রজাতি থেকে। তাই বলা যায় যে, জায়ান্ট বার্ব চাষের ফলে দেশের মানুষের আমিষের ঘাটতি পূরণ ও চাষিরা অধিক লাভবান হতে পারবে।

শেষকথা:

যেহেতু এ মাছের খাদ্যাভ্যাস, বাসস্থল, দৈহিক বৈশিষ্ট্য ইত্যাদির সাথে আমাদের দেশের রুই জাতীয় মাছের খাদ্যাভ্যাস, বাসস্থল ও দৈহিক বৈশিষ্ট্যের বেশ মিল রয়েছে তাই মৎস্যচাষে এদের অন্তর্ভুক্ত করার যথেষ্ট সুযোগ ও সম্ভাবনা রয়েছে। তবে যে কোন বিদেশী মাছ এদেশে নিয়ে আসার পূর্বে প্রয়োজনীয় তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণপূর্বক এদেশে প্রথমে গবেষণা পর্যায়ে কৃত্রিম প্রজননের মাধ্যমে পোনা উৎপাদন ও চাষ প্রযুক্তি উদ্ভাবন করার পর সার্বিকভাবে মাছটি আমাদের জীব-বৈচিত্র্য ও মাছচাষের ক্ষেত্রে উপকারী বলে বিবেচিত হয় তবে মাছটি হতে পারে আমাদের মৎস্য-খাতের নতুন এক সম্ভাবনার নাম।

তথ্যসূত্র:

  • DoF (2019) National fish week compendium. Department of Fisheries, Ministry of Fisheries and Livestock, Government of the People’s Republic of Bangladesh. pp: 160p.
  • Froese R and Pauly D (eds) (2011) Catlocarpio siamensis. FishBase (August 2011 version). Retrieved on 5 August 2021. https://www.fishbase.se/summary/Catlocarpio-siamensis.html
  • Hogan Z (2011) Catlocarpio siamensis. The IUCN Red List of Threatened Species 2011: e.T180662A7649359. Retrieved on 5 August 2021. https://dx.doi.org/10.2305/IUCN.UK.2011-1.RLTS.T180662A7649359.en.
  • Mattson N S, Kongpheng B, Naruepon S, Nguyen T and Ouk V (2002) Cambodia Mekong giant fish species: on their management and biology. MRC Technical Paper No. 3, Mekong River Commission, Phnom Penh. pp.29. ISSN: 1683-1489. Retrieved on 5 August 2021. https://www.ais.unwater.org/ais/aiscm/getprojectdoc.php?docid=3033
  • Nationalgeographic (2021) Giant barb. Retrieved on 5 August 2021. https://www.nationalgeographic.com/animals/fish/facts/giant-barb
  • Nelson JS (2006) Fishes of the World. John Wiley and Sons Inc. New Jersey. xiv + 601 p
  • Rainboth WJ (1996) Fishes of the Cambodian Mekong. FAO species identification field guide for fishery purposes. FAO, Rome, 265p. Retrieved on 5 August 2021. http://library.enaca.org/inland/fishes-cambodian-mekong.pdf
  • Vietnambreakingnews (2014) Cultivating giant carps creates giant profits in Vietnam. Retrieved on 5 August 2021. https://www.vietnambreakingnews.com/2014/11/cultivating-giant-carps-creates-giant-profits-in-vietnam/
  • Wikipedia (2021) Giant barb. Retrieved on 5 August 2021. https://en.wikipedia.org/wiki/Giant_barb


Visited 157 times, 1 visits today | Have any fisheries relevant question?

Visitors' Opinion

লেখক

স্নাকোত্তর শিক্ষার্থী (এমএস ইন একুয়াকালচার), ফিশারীজ বিভাগ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী, বাংলাদেশ

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.